ইলেকট্রিক সাইকেল এর দাম

ইলেকট্রিক সাইকেল এর দাম : সাইকেল চালাতে আমরা কে ই না ভালোবাসি ! ছোটবেলায় বাবার কাছে একটি সাইকেল এর জন্য কতই না বাহানা করেছি। অবশেষে যখন সেই সাইকেল আমাদের হাতে এসে যায় তখন আর ঠেকায় কে! মুহূর্তের মধ্যে ছোটবেলার চঞ্চলতার বশে এক জায়গা থেকে আর এক জায়গায় নতুন সাইকেল নিয়ে কত পথেই না পাড়ি দিয়েছি। কিংবা সকাল সকাল ঘুম থেকে উঠেই হয়ত অস্থিরতা জেগেছে যে কখন স্কুলে যাওয়ার সময় হবে আর চট করে প্যাডেল ঘুরিয়ে সকালের দমকা হাওয়া খেতে খেতে পৌছে যাব স্কুলে !

ইলেকট্রিক সাইকেল এর দাম :

আজ সেসব হয়ত আমাদের স্মৃতির পাতায় কোণ ঠাসা হয়ে আছে। তবে এখনও সুযোগ ও সময় দুটোই পেলে কে ই না তা উপভোগ করতে চাই। এখনো আমাদের হাতে সাইকেল দিলে আমরা হয়ত আবার মূহুর্তের মাঝে চলে যেতে চাইব সেই পুরোনো দিনগুলোতে।হারিয়ে যেতে চাইব প্রকৃতির মাঝে। ফিরে যাব তারুণ্যের দিনগুলোতে।

আমরা সচারচর যেসব সাইকেল চালিয়ে অভ্যস্ত তার বেশির ভাগ ই হয়ত প্যাডেল ঘুরিয়ে চালিয়েছি কিংবা হয়ত একটু উন্নত হলে গিয়ার সাইকেল চালিয়েছি। গিয়ার সাইকেল এর প্রতি সকলেরই একটি আলাদা টান ছিল অবশ্য।

তবে ইলেকট্রিক সাইকেল হয়ত কেউ চালাইনি। কি! আশ্চর্য হচ্ছেন তো। স্বাভাবিক, আমি নিজেও হয়ত ভাবতে পারিনি যে এরকম কোনো সাইকেল থাকতে পারে। কিংবা আমিও ঠিক আপনার মতো ততটাই আশ্চর্য হয়েছি। তাহলে আজকে আমরা এই ইলেকট্রিক সাইকেল এর দাম সম্পর্কে একটু ধারণা নিয়ে ফেলি!

ইলেকট্রিক সাইকেল এর দাম –

ইলেকট্রিক যে সাইকেল গুলো রয়েছে সেগুলো মূলত হিমো ব্রান্ড এর অধীনে তৈরি। যা চীন থেকে আমদানি করা হয়। এবং বাজারে এর মূল্য মাত্র 2 হাজার 999 চীনা ইউয়ান যা বাংলাদেশি টাকায় পড়বে মাত্র প্রায় 37 হাজার টাকা।

ইলেকট্রিক সাইকেলটির বৈশিষ্ট্য-

শাওমি কর্তৃক জানানো হয় যে, হিমোষটি ওয়ান সাইকেল এর মডেলটির ওজন প্রায় 53 কেজি। এবং এটি ঘন্টা তে সর্বোচ্চ 25 কিমি বেগে ছুটতে পারবে। এটিতে রয়েছে 14 হাজার এমএএইচ ব্যাটারি সমৃদ্ধ এই সাইকেলটি এক চার্জে প্রায় 60 কিমি পর্যন্ত চলতে পারবে। অন্যদিকে 28 হাজার এমএএইচ সমৃদ্ধ দুটি ব্যাটারি দিয়ে তৈরি সাইকেলটি চলতে পারবে প্রায় 120 কিমি। মূলত এই দুই ধরনের ব্যাটারিতে এই সাইকেল পাওয়া যাবে। উল্লেখ্য যে এই সাইকেলটি বাজারে এসেছে গত বছর 2019 সালের মাঝে 6 জুন তারিখে।

নিশ্চয়ই ইলেকট্রিক সাইকেল এর দাম নিয়ে আপনাদের আর কোনো সন্দিহান থাকবে না। তাই আর দেরি না করে আপনিও কিনে ফেলুন এই ইলেকট্রিক সাইকেলটি। এরং আবার ফিরে চলুন শৈশবের সেই স্মৃতি গাথা দিনগুলোতে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *