ইসমা নামের অর্থ কি এবং গুরুত্ব

ইসমা নামের অর্থ কি এবং গুরুত্ব নিয়ে আলোচনা করা হলো । কোনো ব্যক্তির পরিচয়ের মৌলিক মাধ্যম হল নাম। নবজাতকের নাম রাখা নিয়ে আমাদের সবারই মধ্যে বেশ আগ্রহ লক্ষ্য করা যায়। মানুষ তার জীবনে সবচেয়ে বেশিবার যে শব্দটি শুনতে পায় তা হল নিজের নাম। প্রত্যেক মা- বাবার’ই নিজেদের সন্তানের নাম ঠিক করার বিষয়ে সচেতন থাকা উচিৎ। একটি সুন্দর নাম মানুষের আত্মবিশ্বাসকে বহুগুণে বাড়িয়ে দেয় ৷ তাছাড়া ইসলামেও সুন্দর ও ইসলামিক নামকরণের তাগিদ দেওয়া হয়েছে। ইসমা একটি সুন্দর ইসলামিক নাম। নামটির অর্থ, উপোযোগিতা এবং গুরুত্ব এই আর্টিকেলে আলোচনা করা হবে।

ইসমা শব্দটি একটি আরবি শব্দ। ইসমা শব্দের ইংরেজি বানান হল – Isma
এছাড়া আরও কয়েকটি অপ্রচলিত ইংরেজি বানান আছে :- Esma, Ishma Eshma ইত্যাদি

ইসমা (Isma) নামের অর্থ কি —

ইসমা শব্দের আভিধানিক বাংলা অর্থ হল – রক্ষা, সংরক্ষণ, আশ্রয়, সুরক্ষিত ।

ইসমা নামের বৈশিষ্ট্য :-

ইসমা নামটি ইসলামিক, আধুনিক এবং বেশ ছোট নাম। বাংলাদেশ, পাকিন্তান, ইন্দোনেশিয়া সহ বিভিন্ন মুসলিম রাষ্ট্রে এই নামটি প্রচলিত আছে। সাধারণত মেয়েদের নাম হিসেবেই ইসমা নামটি ব্যবহৃত হয়, ছেলেদের ক্ষেত্রে ইসমা নামের প্রচলন নেই বললেই চলে। ছোট হওয়ায় অনেকেই ডাক নাম হিসেবে
‘ ইসমা ‘ নামটি বেশি পছন্দ করেন৷

Read More  নাহিদ নামের অর্থ কি

ইসমা শব্দ দিয়ে কিছু নাম –

ইসমা জান্নাত
ইসমা নূর আতিয়া
ইসমা তাসফিয়া
ইসমা সুলতানা
নাজিফা ইসমা
রামিসা ইসমা তুলি
আব-ই জান্নাত ইসমা
ইসমা রুহানি
ইসমা জাহান
কাবেরী ইসমা
ইসমা হাসান রেবা
রাবেয়া তুল ইসমা
ইসমা খান
ইসমা আফরিন
কানিজ ফাতেমা ইসমা
ইসমা আফসানা
ইত্যাদি

শেষ কথা –

প্রিয় পাঠক। আশা করি এই আর্টিকেলটি আপনার ভাল লেগেছে । ইসমা নামটি একটি মুসলিম শিশুর জন্য খুবই ভাল নাম। আমরা সবসময় চেষ্টা করি যাতে আপনারা সঠিক তথ্য দিতে ৷ এই আর্টিকেলটি সম্পর্কে যদি আর কিছু জানার বা প্রশ্ন করার থাকে তবে আপনি নীচে মন্তব্য করে আমাদের জানাতে পারেন৷
আর যদি ইসমা নামটি আপনার মনে ধরে থাকে তবে নিজের সন্তানের জন্য এই সুন্দর নামটি নির্বাচন করুন অথবা আপনার সদ্য সন্তান লাভ করা কোনো বন্ধুকে সাজেস্ট করুন। আপনার এবং আপনার পরিবারের জন্য অসংখ্য ভালোবাসা ও শুভ কামনা রইল৷

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x