প্রোফাইল পিক ক্যাপশন

প্রোফাইল পিক ক্যাপশন ভালো ছবির ফেসবুক ক্যাপশন এর জন্য কিছু বাংলা স্ট্যাটাস দেয়া হলো । অনেক সুন্দর সুন্দর এই ক্যাপশন গুলো দিতে পারেন ফেসবুক প্রোফাইলে । ফেসবুক স্ট্যাটাস

প্রোফাইল পিক ক্যাপশন :

দূর থেকে মানুষ চেনা সহজ, কিন্ত ভেতর থেকে চেনা খুব কঠিন

এ জীবনে অনেকেরই ভালো বন্ধু হয়েছি কিন্তু কারো প্রিয় বন্ধু হতে পারিনি..

মাথাব্যথা করলে একটা প্যারাসিটামল খেয়ে নিতে বলাটা হচ্ছে কেয়ারিং । আর মাথায় হাত বুলিয়ে দেয়াটা হচ্ছে ভালোবাসা।

কিছু কিছু মানুষ আছে যারা অন্যকে টিস্যু পেপার মনে করে,নিজের প্রয়োজনে ব্যবহার করে, প্র‍য়োজন শেষে ছুঁড়ে ফেলে দেয়,,

আপনার রাগের জন্য হয়তো কেউ আপনাকে শাস্তি দেবে না , কিন্তু আপনার রাগই আপনাকে শাস্তি দেবে।

স্বাভাবিক ব্যাপারগুলোকে স্বাভাবিকভাবে মেনে না নিতে পারা মানুষগুলোই অস্বাভাবিক হয়ে থাকে |

প্রকৃত স্মার্ট তারা , যারা সব পরিস্থিতিতে নিজেকে মানিয়ে নিতে পারে

আরো আছেঃ>>> বাংলা শর্ট ক্যাপশন

স্বাভাবিক ব্যাপারগুলোকে স্বাভাবিকভাবে মেনে না নিতে পারা মানুষগুলোই অস্বাভাবিক হয়ে থাকে |

পড়াশোনা হচ্ছে আমার বাম হাতের খেলা কিন্তু সমস্যা হলো আমি ডানহাতি খেলোয়াড

মানুষের জীবনের সুখ আর Android ফোনের চার্জ কখনই দীঘস্থায়ী নয় !

একটা সময় ছিল আমার অভিমান গুলোর কদর ছিল,অভিমান ভাঙানোর হাজার চেষ্টা করত,না খাইলে জোর করে লোকমা তুলে খাইয়ে দিত,আজ আর কেউ সারাদিন উপোষ থাকলেও একটু খাবার মুখে দেওয়ার মত নেই,হারিয়ে গেছে রঙিন দিনগুলি ।

জানিনা মানুষ কিভাবে গার্লফ্রেন্ডকে মনের কথা বুঝায়__ আমি তো নাপিত দর্জিকেও আমার মনের কথা বুঝাতে পারিনা

৫ মিনিট সময় চেয়ে ৫০ মিনিট ধরে সাজু গুজু করা মেয়েদের জন্মগত অধিকার !

ভালো ছবির ফেসবুক ক্যাপশন :

প্রোফাইল পিক ক্যাপশন : ভালো ছবির

সম্পর্ক গুলা অনেক দিন বেচেঁ থাকে যদি ইগোটাকে সাইডে রাখা যায়

সেই ছেলে গুলাই ছ্যাচড়া হয় যেগুলা মেসেজ সিন এর পর রিপলে না পেয়ে আবারো মেসেজ দেয়

শুনেছি ভালো মানুষের কপালে ভাত জোটে না ! . তাহলে কি আমাকে সারাজীবন বিরিয়ানি খেয়ে থাকতে হবে..?

সেই ছেলে গুলাই ছ্যাচড়া হয় যেগুলা মেসেজ সিন এর পর রিপলে না পেয়ে আবারো মেসেজ দেয়

সম্পর্ক গুলা অনেক দিন বেচেঁ থাকে যদি ইগোটাকে সাইডে রাখা যায়

জীবন এত ক্ষণস্থায়ী বলেই মাঝে মাঝে সবকিছু এমন সুন্দর মনে হয়।

বেশি দিন ভালবাসতে পারে না বলেই ভালবাসার জন্য মানুষের এত হাহাকার।

আরো পড়ুনঃ বেস্ট ক্যাপশন বাংলা

সাদা রঙের ড্রেস পছন্দ…. পরলে সবাই বলে ভালো লাগছে অদ্ভুত!!! যখন মরে যাবো তখন তো সাদা রঙের কাপড়ই পরে থাকবো তখন সবাই কি বলবে??

ঘুম ভাঙ্গেছে তবু বিছানা আমাকে ছাড়ে না কেন আরও ঘন্টাখানেক শুয়ে থাকা মানে কি অলসতা নাকি সত্যি বিছানা আমাকে ভালোবাসে….

তুমি যদি কাউকে হাসাতে পার, সে তোমাকে বিশ্বাস করবে। সে তোমাকে পছন্দও করতে শুরু করবে।

হৃদয়ের গভীরে যার বসবাস, তাকে সবকিছু বলতে হয় না। অল্প বললেই সে বুঝে নেয়।

মানবহৃদয় আয়নার মত। সে আয়নায় ভালবাসার আলো পড়লে তা ফিরে আসবেই।

হৃদয়ের গভীরে যার বসবাস, তাকে সবকিছু বলতে হয় না। অল্প বললেই সে বুঝে নেয়।

কাগজে-কলমে কোন সৌন্দর্যের যথার্থতা ব্যাখ্যা করা সম্ভব নয়। সৌন্দর্যের মুখোমুখি গিয়ে দাঁড়াতে হয়।

সুখী হওয়ার একটা অদ্ভুত ক্ষমতা আছে মানুষের। এ জগতে সবচেয়ে সুখী হচ্ছে সে, যে কিছুই জানে না। জগতের প্যাঁচ বেশি বুঝলেই জীবন জটিল হয়ে যায়।

সব শখ মিটে গেলে বেঁচে থাকার প্রেরণা নষ্ট হয়ে যায়। যেসব মানুষের শখ মিটে গেছে তারা অসুখী।

যার কাছে ঘুম আনন্দময় সে-ই পৃথিবীর সবচেয়ে সুখী মানুষ। অতি সামান্য জিনিসও মানুষকে অভিভূত করে ফেলতে পারে।

খুব বেশি সুন্দর কোন কিছু দীর্ঘস্থায়ী হয় না। খুব ভাল মানুষরাও বেশি দিন বাঁচে না। স্বল্পায়ু নিয়ে তারা পৃথিবীতে প্রবেশ করে।

যখন কেউ কারো প্রতি মমতা বোধ করে, তখনই সে লজিক থেকে সরে আসতে শুরু করে। মায়া-মমতা-ভালবাসা এসব যুক্তির বাইরের ব্যাপার।

বেশি নৈকট্য দূরত্বের সৃষ্টি করে। প্রিয়জনদের থেকে তাই দূরে থাকাই ভাল। সম্পর্ক স্থির নয়, পরিবর্তনশীল।

রহস্য সৌন্দর্যের সৃষ্টি করে। কৌতূহলেরও জন্ম দেয়।

কিছু কথা শুধু নিজের ভেতর রাখো। দ্বিতীয় কেউ জানবে না। কোনভাবেই না। দুই জন জানলে বিষয়টা গোপন থাকে। তিনজন জানলে নাও থাকতে পারে। আর চারজন জানা মানে সবাই এক সময় জেনে যাবে।

বলার আগে শুনে নাও, প্রতিক্রিয়া দেখানোর আগে চিন্তা কর, সমালোচনার আগে ধৈর্য্য ধর, প্রার্থনার আগে ক্ষমা চাও, ছেড়ে দেয়ার আগে চেষ্টা কর।

না চাইতেই যা পাওয়া যায়, তা সবসময় মূল্যহীন।

পায়ের আলতা খুব সুন্দর জিনিস। কিন্তু আলতাকে সবসময় গোড়ালীর নিচে পড়ে থাকতে হয়, এর উপরে সে উঠতে পারেনা।

অতিরিক্ত যেকোন কিছু পতন নিয়ে আসে। সবকিছু তাই নির্দিষ্ট সীমায় রাখাই শ্রেয়।

চুপ থাকা খুব সহজ একটা কাজ। পারস্পরিক বহু সমস্যার সমাধান শুধু চুপ থাকলেই হয়ে যায়। কিন্তু মানুষের সবচেয়ে বড় অযোগ্যাতা হচ্ছে সে মুখ বন্ধই রাখতে পারে না, অপ্রয়োজনে অনর্গল বকে যায়।

দুর্নামকারীরা সাধারণত আড়ালপ্রিয়। সামনে ভাল মানুষ সেজে বসে থাকে।

বিচার যখন থাকে না, সমস্যার সমাধানও হয় না। সব সমস্যা বরং পুঞ্জীভূত হয় আরও। আমাদেরও তাই হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x