বসন্তের উক্তি

কিছু বসন্তের উক্তি নিয়ে আমাদের এই পোস্ট করা হয়েছে । বসন্ত নিয়ে অনেক মনিষী অনেক মনোরম উক্তি করেছেন । যে উক্তি গুলোর মাধ্যমে বসন্তের সুন্দর দিক গুলো ফুটে উঠেছে । বসন্ত মানেই সুন্দর । বাংলার ঋতু রাজা বলা হয় এই বসন্তকে । সুতরাং এটা কত টা সুন্দর তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না । তাই চলুন এই ঋতু রাজা কে নিয়ে কিছু সুন্দর সুন্দর উক্তি পড়ে আসি । আরো পড়ুনঃ ফুল নিয়ে উক্তি

বসন্তের উক্তি

ফুল ফুটুক না ফুটুক আজ বসন্ত ।
— সুভাষ মুখোপাধ্যায়

ফুল ফোটার মধ্য দিয়েই বসন্তের শুরু হয় ।
— অ্যালজারন চার্লস সুইনবার্ন

কিছু বলার প্রকৃত সময় হলো বসন্ত, ‘লেটস পার্টি’
— রবিন উইলিয়ামসবসন্তের উক্তি

যেদিন প্রভু আশা সৃষ্টি করেছিলেন সম্ভবত সেদিনই তিনি বসন্ত তৈরি করেছিলেন ।
— বার্নার্ড উইলিয়ামস

“বসন্ত” সব কিছুতে নতুন জীবন ও সৌন্দর্য যোগ করে ।
— জেসিকা হ্যারেলসন

বসন্তের মধ্যে আমি ২৪ ঘন্টাই ১৩৬ ধরনের আবহাওয়া দেখতে পাই ।
মার্ক টোয়েন

আনন্দ ও উৎসাহে চলছে বসন্তের কাজ ।
— জন মুর

বসন্তে ফোটা প্রথম ফুল গুলি আমার হৃদয়ে সুর তোলে ।
— এস ব্রাউন

বসন্ত আমাকে আর এই বাড়িতে থাকতে দিবে না, আমাকে অবশ্যই বাইরে বেরিয়ে আসতে হবে এবং আবার বাতাসে গভীরভাবে শ্বাস নিতে হবে ।
— গুস্তাভ মাহলার

শীতের শেষের দিকে এবং বসন্তের প্রথম দিকে ফুলগুলি, তাদের আকারের তুলনায় খুব ভালোভাবে আমাদের হৃদয়ে স্থান দখল করে নেয় ।
— এস উইস্টার

আমি বসন্তের লক্ষণগুলি দেখতে জানালা দিয়ে বাইরে তাকালাম। আকাশ অনেক নীল, গাছগুলি অনেক উদীয়মান এবং সূর্য খুব উজ্জ্বল ছিল ।
— মিল্লার্ড কাউফম্যান

শীতের তীব্র শীতে কাউকে পাওয়ার জন্য বসন্তের আগমনের প্রতিশ্রুতিই যথেষ্ট ।
— জেন সেলিনস্কি

বসন্ত আসবে এবং সুখও আসবে। অপেক্ষা কর, জীবন অনেক সুন্দর হবে ।
— অনিতা ক্রিজান

বন্ধুরা, বসন্ত এসে গেছে; পৃথিবী খুশিতে সূর্যের আলিঙ্গন গ্রহণ করেছে এবং আমরা শীঘ্রই তাদের প্রেমের ফলাফলগুলি দেখতে পাব ।
— সিটিং বুল

লোকেরা আমাকে জিজ্ঞেস করে যে, শীতকালে আমি কী করি যখন বেসবল থাকে না । আমি বলিঃ আমি জানালার দিকে তাকিয়ে বসন্তের জন্য অপেক্ষা করি ।
— রজার হরণস্বয়

আপনি সমস্ত ফুল কেটে ফেলতে পারেন কিন্তু বসন্ত কে আসতে বেঁধে রাখতে পারবেন না।
— পাবলো নেরুদা

নিজের সম্পর্কে উক্তি

নিজের সম্পর্কে উক্তি করার মত অনেক কিছুই আছে । আমরা নিজেকে নিয়ে কত কিছুই না ভাবি । ঠিক তেমনি অনেক বড় বড় মনিষীরাও তাদের নিজেদের সম্পর্কে অনেক উক্তি করে গেছেন । আর সেই উক্তি গুলো পরবর্তীতে আমাদের জন্য শিক্ষণীয় হয়ে রয়ে গেছে । সেইসব উক্তি থেকে সেরা সেরা কিছু উক্তি এখানে তুলে ধরা হলো । আশাকরি এই উক্তি গুলো পড়ে অনেক নতুন কিছু জানতে পারবেন । যদি ভালো লাগে আপনার ফেসবুকে আমাদের সাইট টি শেয়ার করবেন । যাতে অন্যরাও এই মূল্যবান কথা গুলো পড়তে পারে । ধন্যবাদ । আরো দেখুনঃ পরিবার নিয়ে উক্তি

নিজের সম্পর্কে উক্তি :

“ভবিষ্যত তাদের পুরষ্কার দেয়, যারা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে । আমার নিজের জন্য দুঃখ পাওয়ার মতো সময় নেই। আমার অভিযোগ করার সময় নেই। আমি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে যাচ্ছি ।”
— বারাক ওবামা

“আমি নিজেকে সীমাবদ্ধ করতে যাচ্ছি না, কারণ লোকেরা এই বিষয়টি গ্রহণ করবে না যে, আমি অন্যরকম কিছু করতে পারি ।”
— ডলি পার্টননিজের সম্পর্কে উক্তি

“আমি একটি খবরের কাগজও পড়ি না, মাসে এক বারও পড়ি না এবং আমি নিজেকে এর জন্য অত্যন্ত সুখী মনে করি ।”
— থমাস জেফারসন

“নিজের মধ্যেই থাকুন, কারও কাছ থেকে কিছু নেবেন না, এগুলি আপনাকে কখনই জীবিত থাকতে দেবে না ।”
— জেরার্ড ওয়ে

“যে নিজে ভাল থাকতে পারে না, সে অন্য কাউকে ভালো থাকতে দেয় না ।”
—- প্রবাদ

“নিজেকে ভালো রাখার সবচেয়ে ভালো উপায় হচ্ছে, অল্পতে সন্তুষ্ট থাকা এবং কারো কাছে কিছু আশা না করা ।”
— অজানা

“নিজের মধ্যে থাকো, নিজের কাছে যা আছে তা নিয়ে থাকো, অন্যের দিকে তাকাতে নেই, তাহলে কষ্ট পাবে ।”
— অজানা

“আমি প্রায়শই নিজেকে আবিস্কার করি। এটা আমার কথায় নতুন স্বাদ যুক্ত করে ।”
— জর্জ বার্নার্ড শ

“আমি প্রতিদিন একবার নিজের সাথে কথা বলি, কারণ এটা আমার নিজের প্রতি আত্মবিশ্বাস আরো বাড়িয়ে দেয় ।”
— অজানা

“যে নিজের ভুল সংশোধন করতে পারে না, সে কখনই অন্যের ভুল ধরার যোগ্যতা রাখে না ।”
— অজানা

“নিজেকে আবিষ্কার করুন, নিজের ভেতর লুকিয়ে থাকা সুপ্ত প্রতিভার বিকাশ ঘটান, তবেই সফলতা ধরা দেবে ।”
— অজানা

“আমি সাধারণত নিজেকে ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে পরিচয় দেই, আমি ছোটবেলা থেকেই মূলত এটি করে আসছি ।”
— এলন মাস্ক

জ্ঞানের কথা

জ্ঞানের কথা মানে হলো গুণীজনদের কিছু শিক্ষনীয় উক্তি এবং স্ট্যাটাস এখানে দেয়া হলো । আশাকরি এই বিখ্যাত ব্যাক্তিদের উক্তি গুলো অনেক ভালো লাগবে । এখানে যে কথা গুলো দেয়া হয়েছে, এগুলো সবার অন্তত জীবনে একবার হলেও পড়া ও জানা দরকার । কারণ এখানে অনেক শিক্ষণীয় কথা আছে যেখান থেকে আমরা অনেক শিক্ষা নিতে পারি । আমাদের বাস্তব জীবনে কাজে লাগাতে পারি । তো চলুন দেখা যাক, সেই মূল্যবান কথা বা উক্তি গুলো ।

জ্ঞানের কথা / স্ট্যাটাস

“আমরা জীবন থেকে শিক্ষা গ্রহন করি না বলে আমাদের শিক্ষা পরিপূর্ণ হয় না।”

“যে যত বেশী ভ্রমণ করবে তার জ্ঞান তত বেশি বৃদ্ধি পাবে।”

“জীবন আর সময় হলো পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ শিক্ষক |
জীবন শেখায় সময়কে সঠিকভাবে ব্যবহার করতে আর সময় শেখায় জীবনের মুল্য দিতে।”

“অতি দ্রুত বুঝতে চেষ্টা করো না,
কারণ তাতে অনেক ভুল থেকে যায়।”জ্ঞানের কথা

“যে অন্যদের জানে সে শিক্ষিত,
কিন্তু জ্ঞানী হলো সেই ব্যক্তি যে নিজেকে জানে |
জ্ঞান ছাড়া শিক্ষা কোনো কাজেই আসেনা।”

“তোমার যা নেই তার পেছনে ছুটে যা আছে তা নষ্ট করো না ;
মনে রেখ,
আজকে তোমার যা আছে,
গতকাল তুমি সেটার পেছনে ছুটেছিলে ।”

“যতদিন লেখাপড়ার প্রতি আকর্ষণ থাকে,
ততদিন মানুষ জ্ঞানী থাকে,
আর যখনই তার ধারণা জম্মে যে সে জ্ঞানী হয়ে গেছে,
তখনই মূর্খতা তাকে ঘিরে ধরে।”

“লজ্জা ও ভয় হলো জ্ঞানার্জনের প্রতিবন্ধকতা।”

“একজন ঘুমন্ত ব্যক্তি আরেকজন ঘুমন্ত ব্যক্তিকে জাগ্রত করতে পারে না।”

“মানুষের সুখী হওয়ার জন্যে সবচেয়ে বেশি দরকার জ্ঞানের
– এবং শিক্ষার মাধ্যমে এর বৃদ্ধি ঘটানো সম্ভব।”

“যে কখনও ভুল করেনা।
সে নতুন কিছু করার চেষ্টা করে না।”

“মূর্খের উপাসনা অপেক্ষা জ্ঞানীর নিদ্রা শ্রেয়।”

“বড়- বড় নামকরা স্কুলে বাচ্চারা বিদ্যার চাইতে অহংকার টা বেশি শিক্ষা করে।”

“জানা সত্ত্বেও মেনে না চলার চেয়ে না জানাই ভালো।”

“ধর্ম ও নৈতিকতার শিক্ষা সন্তানের জন্য সবচেয়ে বড় সম্পদ।”

“জ্ঞান অর্জনের মাধ্যমে উপার্জিত হয় যেমন ধৈর্য ধৈর্যধারণের মাধ্যমে অর্জিত হয়।”

“যে ব্যক্তি কল্যাণের খোঁজে ব্যতিব্যস্ত হয় সে কল্যাণ লাভ করে।
যে অকল্যাণ থেকে বাঁচার চেষ্টা করে সে অকল্যাণ থেকে রক্ষা পায়।”

“দেখবার জন্য আমাদের চোখের যেমন আলোর প্রয়োজন,
ঠিক তেমনী কোনো প্রত্যয় অর্জন করবার জন্য আমাদের ভাবনার প্রয়োজন।”

“অর্থ ব্যয় করলে নিঃশেষ হয়ে যায় কিন্তু জ্ঞান বিতরণ করলে আরো বৃদ্ধি পায়।”

“কোনো মানুষ জ্ঞানী হয়ে জন্ম নেয় না।
তাকে জ্ঞান অর্জন করতে হয়।”

“শিক্ষার শেকড়ের স্বাদ তেঁতো হলেও এর ফল মিষ্টি”

“আমরা যতই অধ্যয়ন করি ততই আমাদের অজ্ঞানতাকে আবিষ্কার করি।”

“অজ্ঞতার মধ্যে জ্ঞানের বিস্তার যেন অন্ধকারের মধ্যে আলোর প্রবেশ ।”

“জ্ঞান হল সকল প্রকার সম্পদের জননী।”

স্মার্ট ফেসবুক স্ট্যাটাস

কিছু স্মার্ট ফেসবুক স্ট্যাটাস নিয়ে হাজির হলাম । আশাকরি এই স্মার্ট বাংলা স্ট্যাটাস গুলো পড়ে যে কেউ অনেক খুশী হবে । আর এগুলো আপনার ফেসবুকে শেয়ার করে হয়ে যান স্মার্ট পারসন । বন্ধুদের মাঝে অনেক স্মার্ট একজন হিসেবে আপনি হবেন পরিচিত । যা হোক দেখা যাক সেই দারুণ সব স্ট্যাটাস গুলোঃ

স্মার্ট ফেসবুক স্ট্যাটাস

যেদিকে তাকাই, যেখানে চোখ যায়, সেখানে দেখি তোমায় ,
লুকোচুরি মন লুকোচুরি সুখ লুকিয়ে রয় ভাবনায় ।

আমি আকাশ হতে জানি, তুমি দেখ ডানা মেলে,
আমি নদী হতে পারি, যদি ইচ্ছে ভাসাও জলে

যেদিন প্রান খুলে হাসতে গিয়েও চিন্তা করবেন হাসাটা ঠিক হবে কিনা,
তখনই বুঝবেন আপনি বড় হয়ে গেছেন ।স্মার্ট ফেসবুক স্ট্যাটাস

তোমার জন্য আমি নিজস্ব অর্থায়নে মনের মধ্যে পদ্মা সেতু বানাবো ।

প্রত্যেক প্রেমিকার কাছে তার প্রেমিকের বান্ধবীরা সতিনের ন্যায় ।

যোগ্য মানুষকে যোগ্যতা দিয়ে হারাতে হয়, হিংসা করে নয় ।

ওহে বালিকা, তোমার মাঝে আমি একবার ডুব দিতে চাই,
কথা দিতেছি আমি তোমার মাথা ঘোরা আর বমির কারন হবো না ।

তুমি কি আমার হাসি মুখের আবার কারন হবে ?
তুমি কি আমার শত ভুলের আবার বারন হবে ?

সূর্যটা গেছে ডুবে, দিগন্তের আঁচলে ।
মুখ লুকাতে চেয়েছি বলে – তোমার বুকের তিলে ।

অনেক সবুজের প্রান্তে তুমি থাকো একাকী,
আমি ধূসর, ধূসর হয়ে জেগে থাকি ।
অনেক মানুষের ভিড়েও তুমি থাকো একাকী,
আমি অনেক আশা নিয়ে বসে থাকি .
যতো দূরেই যাই না কেন ।

যতো দূরেই যাই না কেন , তুমিই শেষ সীমানা ।
ভবঘুরে এই আমার – তুমিই তো ঠিকানা ।

তার কালো চোখে কাজল ছিল না, না পাওয়া ছিল—গাঢ়
সেই কাঁপা ঠোঁটে নিষেধ ছিল না, আহ্বান ছিল —আরও

প্রতিটা পুরুষই জীবনের বড় একটা সময় ব্যয় করে দেয় নারীর অভিমান আর রাগ ভাঙ্গাতে।
এটাকে পুরুষজাতি সৃষ্টির অন্যতম একটা কারণও বলা যেতে পারে।

আমার গল্পগুলো যাচ্ছে চলে- ব্যথার সুনীল অন্তরালে, সুপ্তমেঘের জলে ।
রাত বিছানায় জোৎস্না ঘুমায়- সিক্ত আঁধার ভুল ঠিকানায়, দিচ্ছে চুমু ঢেলে ।

মেঘবালিকা তুমি পূবের জানালায় সুভাষিত গন্ধরাজ হও
আমি অন্তরীক্ষে হাওয়ার নৌকোয় মন ভাসাই,
ছোঁয়া ছোঁয়ির ইচ্ছেটা আজ পূর্ণতা পাক ।

বিকেলটা ভালো লাগে যখন, একটু বেশি অকারণ।
তখনই কি বুঝে নেবো, খুঁজছে তোমায় এ মন ।

কতদিন দেখিনা আমাকে অবাধ্য করে দেয়া ঐ নীল চোখের যাদু,
এক মুহুর্তে সব কষ্ট ভুলিয়ে দেয়া সে টোল পড়া গালের হাসি ।

প্রিয় মানুষকে নিয়ে কিছু কথা

প্রিয় মানুষকে নিয়ে কিছু কথা ও কিছু উক্তি এসএমএস নিয়ে আমাদের এই লিখা। প্রিয় মানুষকে নিয়ে লিখার মত অনেক কিছুই আছে । মন থেকে অনেক কথা এসে যায়, যা আমরা আমাদের মনে জমা রেখে দেই । তবে আমরা অনেকেই এই ধরনের রোম্যান্টিক কথা গুলো সুন্দর করে বলতে পারি না । তাই এখানে কিছু সুন্দর সুন্দর কথা ও এসএমএস দেয়া হলো ।

প্রিয় মানুষকে নিয়ে কিছু কথা

তোমাকে সারাক্ষণ যতো হাজার বার
ভালোবাসি বলি ততোবার
চোখের পলকও ফেলিনা,
তোমাকে সারাক্ষণ যতো অজস্রবার
হাত ধরতে বলি ততোবার
বুকের কম্পনও গুনি না…

তোমাকে সারাদিন যতো
সহস্রবার দেখতে চাই
ততোবার নিশ্বাসও ফেলিনা
তোমাকে সারাদিন যতো অসংখ্য বার
পাশে পেতে চাই ততোবার
বাঁচতেও চাইনা…প্রিয় মানুষকে নিয়ে কিছু কথা

তুমি খুব বেশি দূরে নও
এ আমার মন জানে
শুধু চোখ জানেনা,
তুমি খুব বেশি দূরে নও
এ আমার স্পর্শ জানে
শুধু হাত জানেনা,

তোমাকে খুঁজতে, খুঁজতে
পার করেছি বহু পথ
ঝরা পাতা মাড়িয়েছি অনেক
শুধু নিঃশ্বাসেরা জানে তুমি
কতোটা কাছে পথ জানেনা,
ঝরা পাতাও না…

আমাকে পারিনা কভু
দূরে থাকার জন্য করতে
সদা প্রতিহত,
এই মন প্রাণ আত্মাটা
শুধু তোমাকে ভাবে
দিন রাত যথাযত ।

আমার সারাটা দিনই দেখি যে
তোমার কাছে থাকে অনাদৃত,
তুমি যেন সদা অধরা তুমিযে
রয়ে যাও সর্বদা চির অনধিকৃত ।

আমার হৃদয়ের ঘরে সর্বদা থেকো
তুমি শুভ্র সুন্দর অনাবিল,
আমার সারাটা দিনই ভরে থাকুক
নিরাপদে তোমারই স্বপ্নীল ।

ভালোবাসার বাতায়নে
তোমারই মুখটি ভাসে,
তখন আমি পাগল হই এক
স্বপ্ন অভিলাষে ।

আমার সারাটা দিনই
বিফলে যায় তোমার
পিছে, পিছে ঘুরে,
আমি যতটানা আসি
কাছে তুমিযে ততটাই
থেকে যাও দূরে ।

তোমাকে চাইলেও কি
বা নাচাইলেও কি শূন্যই
হয় ফলা ফল,
আমার এই আমিকে
তোমার ভাবনাতেই রাখে
ব্যস্ত ও চঞ্চল ।

কতো গুলো কথা জমে যায় বরফের মতো
কতো গুলো শব্দ ছড়িয়ে যায় আকাশে
দিন যায় এমনি করে রাত গুলো
আমিও চলে যাই তোমার মতো করে।

কিছু, কিছু রাগ থাকে অভিমান ভরা
শক্ত হয় যেন স্বাভাবিক বৃষ্টি -খরা।
কিছু, কিছু দূরত্ব বাড়তে থাকে অবিরাম
কিছু, কিছু ঘনিষ্ঠতা সমুদ্রে হারায়
কিছুু হাত পড়ে থাকে অভিশাপ দেবার।

বসন্ত গুলো চলে যায়
উত্তপ্ত বালুকায়
বাতাস ঝরা পাতার
শব্দ শোনায় নিরালা
চলে যায় স্বপ্ব গুলো
আশা এবং প্রত্যাশা
পূরণ-অপূরণ, চিহৃ বিচিহৃ
যতো বলা নাবলা ভাবনা,
চলে যায় ভেসে যায়
সমস্ত ব্যাথা-বেদনা।

কষ্ট এর ছবি ও স্ট্যাটাস

কষ্ট নিয়ে অনেক কিছুই লিখার আছে । মানুষের জীবন সুখ ও দুঃখ এই দুইয়ের মধ্য দিয়েই যায় । আমরা আমাদের জীবন নিয়ে অনেক চিন্তা করি । কারন আমরা সবাই সুখে থাকতে চাই । আর তাই আমরা সব সময় অনেক পরিশ্রম করে যাই । আমাদের জীবন টাকে সাজানোর জন্য । যদি আমরা কখনো কোন কিছু চেয়ে না পাই ঠিক তখনই আমরা কষ্ট পাই । এটা এমন এক জিনিস, পৃথিবীর এমন কোন মানুষ নেই যে তাকে এটা স্পর্শ করে নাই । আমরা অনেক সময় দেখি আমাদের ফেসবুকে অনেকেই এই ধরনের অনেক ছবি পোস্ট করে থাকেন । আমরা তাই এখানে কিছু খুব সুন্দর সুন্দর ছবি দিয়েছি ।

কষ্ট

 

কষ্ট

কষ্ট কথা

কষ্ট ছবি

কষ্ট স্ট্যাটাস

কষ্ট পিক

মধ্যবিত্ত নিয়ে উক্তি

মধ্যবিত্ত নিয়ে উক্তি । আমাদের সমাজের মধ্যবিত্ত দের নিয়ে কিছু সেরা কথা ও উক্তি শেয়ার করলাম । আশাকরি খুব ভালো লাগবে সবার । তবে অনুরোধ রইলো সব গুলো একবার হলেও পড়বেন । তাহলেই আমাদের কষ্ট সার্থক হবে বলে মনে করি । মধ্যবিত্ত পরিবার হলো মানুষের শেখার জায়গা । যারা উচ্চবিত্ত বা নিন্মবিত্ত তারা হয়তো অনেক ভালো থাকে অথবা অনেক কষ্টে থাকে । কিন্তু মধ্যবিত্ত রা এই দুইয়ের মধ্য দিয়েই বেঁছে থাকে । তারা জীবনের উভয় পিট দর্শন করে । আর তাই তাদের থেকেই পৃথিবীর বড় বড় বিখ্যাত মনিষীদের জন্ম হয়ে থাকে । যা হোক আর কথা না বাড়িয়ে মুল কাজে চলে যাই ।

মধ্যবিত্ত নিয়ে উক্তি

মধ্যবিত্ত পরিবারের মানুষগুলোই, সমাজের আসল রূপ দেখতে পায় ।
— হুমায়ুন আহমেদ

আমার অতীত হলো আমি মধ্যবিত্ত পরিবার থেকে এসেছি এবং আমি যেখানেই যাই সেই অভিজ্ঞতা গুলো আমার সাথে থাকে ।
— নিতা আম্বানিমধ্যবিত্ত নিয়ে উক্তি

মধ্যবিত্ত পরিবারগুলি জানে, জন্মের সময় থেকেই শিক্ষা শুরু হয়ে যায় ।
— জেফ্রি কানাডা

আমি মধ্যবিত্ত পরিবার থেকে এসেছি । আমি ধনী হতে পারিনি, তবে আমি গরিবও হয়ে যাইনি । প্রতিটি লোককে তার নিজের লক্ষে লেগে থাকতে হবে ।
— SonReal

মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তানরাই জানে বাইরের জগত টাকে কিভাবে মানিয়ে নিতে হয় ।
— অজানা

জীবনের কঠিন মুহুর্ত গুলো কাটিয়ে উঠার উপায়, মধ্যবিত্ত পরিবারে বেড়ে উঠা মানুষ গুলোই জানে ।
— অজানা

মধ্যবিত্তের মানুষ রা অন্যকে মূল্যায়ন করতে জানে, যা ধনীরা খুব কমই জানে ।
— অজানা

উচ্চবিত্ত পরিবারে বেড়ে ওঠা কেউ, মধ্যবিত্তে বেড়ে উঠাদের মত হতে পারে না ।
— অজানা

আমি একটি সুন্দর, শহরতলির মধ্যবিত্ত পরিবার থেকে এসেছি, তবে আমার ট্যাটু আমাকে স্মরণ করিয়ে দেয় আমি কোথায় ছিলাম।
— টম হার্ডি

জীবনের বাস্তব চিত্র দেখতে হলে মধ্যবিত্তদের সাথে চলতে হবে ।
— অজানা

পৃথিবীর বেশীর ভাগ সফলতা মধ্যবিত্ত পরিবারের মানুষ গুলো থেকেই এসেছে ।
— অজানা

সমাজের আসল চিত্র বুঝতে হলে আপনাকে অবশ্যই মধ্যবিত্ত হতে হবে ।
— অজানা

মধ্যবিত্ত পরিবার থেকে উঠে আসা মানুষ গুলোই সমাজে বেশী প্রতিষ্ঠিত ।
— ওজানা

প্রোফাইল পিক ক্যাপশন

প্রোফাইল পিক ক্যাপশন এর জন্য কিছু বাংলা স্ট্যাটাস দেয়া হলো । অনেক সুন্দর সুন্দর এই ক্যাপশন গুলো দিতে পারেন ফেসবুক প্রোফাইলে । ফেসবুক স্ট্যাটাস

প্রোফাইল পিক ক্যাপশন

দূর থেকে মানুষ চেনা সহজ, কিন্ত ভেতর থেকে চেনা খুব কঠিন

এ জীবনে অনেকেরই ভালো বন্ধু হয়েছি কিন্তু কারো প্রিয় বন্ধু হতে পারিনি..

মাথাব্যথা করলে একটা প্যারাসিটামল খেয়ে নিতে বলাটা হচ্ছে কেয়ারিং । আর মাথায় হাত বুলিয়ে দেয়াটা হচ্ছে ভালোবাসা।

কিছু কিছু মানুষ আছে যারা অন্যকে টিস্যু পেপার মনে করে,নিজের প্রয়োজনে ব্যবহার করে, প্র‍য়োজন শেষে ছুঁড়ে ফেলে দেয়,,

আপনার রাগের জন্য হয়তো কেউ আপনাকে শাস্তি দেবে না , কিন্তু আপনার রাগই আপনাকে শাস্তি দেবে।

স্বাভাবিক ব্যাপারগুলোকে স্বাভাবিকভাবে মেনে না নিতে পারা মানুষগুলোই অস্বাভাবিক হয়ে থাকে |

প্রকৃত স্মার্ট তারা , যারা সব পরিস্থিতিতে নিজেকে মানিয়ে নিতে পারে

স্বাভাবিক ব্যাপারগুলোকে স্বাভাবিকভাবে মেনে না নিতে পারা মানুষগুলোই অস্বাভাবিক হয়ে থাকে |

পড়াশোনা হচ্ছে আমার বাম হাতের খেলা কিন্তু সমস্যা হলো আমি ডানহাতি খেলোয়াড

মানুষের জীবনের সুখ আর Android ফোনের চার্জ কখনই দীঘস্থায়ী নয় !

একটা সময় ছিল আমার অভিমান গুলোর কদর ছিল,অভিমান ভাঙানোর হাজার চেষ্টা করত,না খাইলে জোর করে লোকমা তুলে খাইয়ে দিত,আজ আর কেউ সারাদিন উপোষ থাকলেও একটু খাবার মুখে দেওয়ার মত নেই,হারিয়ে গেছে রঙিন দিনগুলি ।

জানিনা মানুষ কিভাবে গার্লফ্রেন্ডকে মনের কথা বুঝায়__ আমি তো নাপিত দর্জিকেও আমার মনের কথা বুঝাতে পারিনা
৫ মিনিট সময় চেয়ে ৫০ মিনিট ধরে সাজু গুজু করা মেয়েদের জন্মগত অধিকার !

প্রোফাইল পিক ক্যাপশন

সম্পর্ক গুলা অনেক দিন বেচেঁ থাকে যদি ইগোটাকে সাইডে রাখা যায়

সেই ছেলে গুলাই ছ্যাচড়া হয় যেগুলা মেসেজ সিন এর পর রিপলে না পেয়ে আবারো মেসেজ দেয়

শুনেছি ভালো মানুষের কপালে ভাত জোটে না ! . তাহলে কি আমাকে সারাজীবন বিরিয়ানি খেয়ে থাকতে হবে..?

সেই ছেলে গুলাই ছ্যাচড়া হয় যেগুলা মেসেজ সিন এর পর রিপলে না পেয়ে আবারো মেসেজ দেয়

সম্পর্ক গুলা অনেক দিন বেচেঁ থাকে যদি ইগোটাকে সাইডে রাখা যায়

জীবন এত ক্ষণস্থায়ী বলেই মাঝে মাঝে সবকিছু এমন সুন্দর মনে হয়।

বেশি দিন ভালবাসতে পারে না বলেই ভালবাসার জন্য মানুষের এত হাহাকার।

সাদা রঙের ড্রেস পছন্দ…. পরলে সবাই বলে ভালো লাগছে অদ্ভুত!!! যখন মরে যাবো তখন তো সাদা রঙের কাপড়ই পরে থাকবো তখন সবাই কি বলবে??

ঘুম ভাঙ্গেছে তবু বিছানা আমাকে ছাড়ে না কেন আরও ঘন্টাখানেক শুয়ে থাকা মানে কি অলসতা নাকি সত্যি বিছানা আমাকে ভালোবাসে….

তুমি যদি কাউকে হাসাতে পার, সে তোমাকে বিশ্বাস করবে। সে তোমাকে পছন্দও করতে শুরু করবে।

হৃদয়ের গভীরে যার বসবাস, তাকে সবকিছু বলতে হয় না। অল্প বললেই সে বুঝে নেয়।

মানবহৃদয় আয়নার মত। সে আয়নায় ভালবাসার আলো পড়লে তা ফিরে আসবেই।

হৃদয়ের গভীরে যার বসবাস, তাকে সবকিছু বলতে হয় না। অল্প বললেই সে বুঝে নেয়।

কাগজে-কলমে কোন সৌন্দর্যের যথার্থতা ব্যাখ্যা করা সম্ভব নয়। সৌন্দর্যের মুখোমুখি গিয়ে দাঁড়াতে হয়।

সুখী হওয়ার একটা অদ্ভুত ক্ষমতা আছে মানুষের। এ জগতে সবচেয়ে সুখী হচ্ছে সে, যে কিছুই জানে না। জগতের প্যাঁচ বেশি বুঝলেই জীবন জটিল হয়ে যায়।

সব শখ মিটে গেলে বেঁচে থাকার প্রেরণা নষ্ট হয়ে যায়। যেসব মানুষের শখ মিটে গেছে তারা অসুখী।

যার কাছে ঘুম আনন্দময় সে-ই পৃথিবীর সবচেয়ে সুখী মানুষ। অতি সামান্য জিনিসও মানুষকে অভিভূত করে ফেলতে পারে।

খুব বেশি সুন্দর কোন কিছু দীর্ঘস্থায়ী হয় না। খুব ভাল মানুষরাও বেশি দিন বাঁচে না। স্বল্পায়ু নিয়ে তারা পৃথিবীতে প্রবেশ করে।

যখন কেউ কারো প্রতি মমতা বোধ করে, তখনই সে লজিক থেকে সরে আসতে শুরু করে। মায়া-মমতা-ভালবাসা এসব যুক্তির বাইরের ব্যাপার।

বেশি নৈকট্য দূরত্বের সৃষ্টি করে। প্রিয়জনদের থেকে তাই দূরে থাকাই ভাল। সম্পর্ক স্থির নয়, পরিবর্তনশীল।

রহস্য সৌন্দর্যের সৃষ্টি করে। কৌতূহলেরও জন্ম দেয়।

কিছু কথা শুধু নিজের ভেতর রাখো। দ্বিতীয় কেউ জানবে না। কোনভাবেই না। দুই জন জানলে বিষয়টা গোপন থাকে। তিনজন জানলে নাও থাকতে পারে। আর চারজন জানা মানে সবাই এক সময় জেনে যাবে।

বলার আগে শুনে নাও, প্রতিক্রিয়া দেখানোর আগে চিন্তা কর, সমালোচনার আগে ধৈর্য্য ধর, প্রার্থনার আগে ক্ষমা চাও, ছেড়ে দেয়ার আগে চেষ্টা কর।

না চাইতেই যা পাওয়া যায়, তা সবসময় মূল্যহীন।

পায়ের আলতা খুব সুন্দর জিনিস। কিন্তু আলতাকে সবসময় গোড়ালীর নিচে পড়ে থাকতে হয়, এর উপরে সে উঠতে পারেনা।

অতিরিক্ত যেকোন কিছু পতন নিয়ে আসে। সবকিছু তাই নির্দিষ্ট সীমায় রাখাই শ্রেয়।

চুপ থাকা খুব সহজ একটা কাজ। পারস্পরিক বহু সমস্যার সমাধান শুধু চুপ থাকলেই হয়ে যায়। কিন্তু মানুষের সবচেয়ে বড় অযোগ্যাতা হচ্ছে সে মুখ বন্ধই রাখতে পারে না, অপ্রয়োজনে অনর্গল বকে যায়।

দুর্নামকারীরা সাধারণত আড়ালপ্রিয়। সামনে ভাল মানুষ সেজে বসে থাকে।

বিচার যখন থাকে না, সমস্যার সমাধানও হয় না। সব সমস্যা বরং পুঞ্জীভূত হয় আরও। আমাদেরও তাই হচ্ছে।

হযরত মোহাম্মদ সাঃ এর উক্তি

হযরত মোহাম্মদ সাঃ এর উক্তি , বানী বা হাদিস গুলো মানব সমাজের জন্য অনেক দরকারি । কারন তিনি হলেন পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ মানব । তিনি হলেন আল্লাহর প্রেরিত রাসুল । তিনি মানবতার মুক্তির দূত হিসেবে এসেছেন । তার থেকে শেখার কোন শেষ নেই । তিনি মানব সমস্যার এমন কোন টি নেই যে তার সমাধান দিয়ে যান নি । তার সব কথাতেই কোন না কোন কাজের কথা রয়েছে । তাই আজ এই মহা মানবের কিছু সেরা উক্তি এখানে তুলে ধরলাম । যাতে করে আমরা আরো কিছু শিখতে পারি । হযরত আলী (রাঃ) এর উক্তি

হযরত মোহাম্মদ সাঃ এর উক্তি

আল্লাহ
(১)জান্নাতের চাবি হলো – ‘আল্লাহ ছাড়া কোনো ইলাহ নাই’ এ সাক্ষ্য দেয়া। (আহমদ)
শব্দার্থ : ‘ইলাহ’ মানে হুকুমকর্তা, আইনদাতা, আশ্রয়দাতা, ত্রাণকর্তা, উপাস্য, প্রার্থনা শ্রবণকারী।

(২)আল্লাহ সুন্দর! তিনি সৌন্দর্যকেই পছন্দ করেন। (সহীহ মুসলিম)হযরত মোহাম্মদ সাঃ এর উক্তি

(৩) শ্রেষ্ঠ কথা চারটি :
ক) সুবহানাল্লাহ – আল্লাহ পবিত্র,
খ) আল হামদুলিল্লাহ – সমস্ত প্রশংসা আল্লাহর,
গ) লা–ইলাহা ইল্লাল্লাহ – আল্লাহ ছাড়া কোন ইলাহ নাই,
ঘ) আল্লাহু আকবর – আল্লাহ মহান। (সহীহ মুসলিম)

আল্লাহর অধিকার

(৪) বান্দাহর উপর আল্লাহর অধিকার হলো, তারা কেবল তাঁরই আনুগত্য ও দাসত্ব করবে এবং তাঁর সাথে কোনো অংশীদার বানাবেনা। (সহীহ বুখারী)

ঈমান নিয়ে হযরত মোহাম্মদ সাঃ এর উক্তি

(৫) বলো : ‘আমি আল্লাহর প্রতি ঈমান এনেছি ; অতপর এ কথার উপর অটল থাকো। (সহীহ মুসলিম)

(৬) ঈমান না এনে তোমরা জান্নাতে প্রবেশ করতে পারবেনা। (তারগীব)

(৭) যে কেউ এই ঘোষণা দেবে : ‘আল্লাহ ছাড়া কোনো ইলাহ নাই আর মুহাম্মদ সাঃ আল্লাহর রসূল’ – আল্লাহ তাকে জাহান্নামের জন্যে নিষিদ্ধ করে দেবেন।(সহীহ বুখারী

ঈমান থাকার লক্ষণ

(৮) তুমি মুমিন হবে তখন, যখন তোমার ভালো কাজ তোমাকে আনন্দ দেবে, আর মন্দ কাজ দেবে মনোকষ্ট। (আহমদ)

ইসলাম নিয়ে হযরত মোহাম্মদ সাঃ এর উক্তি

(৯) সব কাজের আসল কাজ হলো ‘ইসলাম’। (আহমদ)

(১০) কোনো বান্দাহ ততোক্ষণ পর্যন্ত মুসলিম হয়না, যতোক্ষণ তার মন ও যবান মুসলিম না হয়। (তাগরীব)

পবিত্রতা

(১১) পবিত্রতা ঈমানের অর্ধেক। (সহীহ মুসলিম)

(১২ ) যে পূত পবিত্র থাকতে চায়, আল্লাহ তাকে পূত পবিত্র রাখেন। (সহীহ বুখারী)

সালাত

(১৩) সালাত জান্নাতের চাবি। (আহমদ)
শব্দার্থ : সালাত – নামায। জান্নাত – বেহেশত।

( ১৪ ) সালাত হলো ‘নূর’। (সহীহ মুসলিম)

( ১৫) সালাত আমার চক্ষু শীতলকারী। (নাসায়ী)

(১৬) পবিত্রতা সালাতের চাবি। (আহমদ)

(১৭) সালাত মুমিনদের মি’রাজ। (মিশকাত)
শব্দার্থ : মি’রাজ মানে – উর্ধ্বে গমন করা বা আল্লাহর নৈকট্য অর্জন করা।

(১৮) যে পরিশুদ্ধ হয়না, তার সালাত হয়না। (মিশকাত)

(১৯) সাত বছর বয়স হলেই তোমাদের সন্তানদের সালাত আদায় কতে আদেশ করো। (আবু দাউদ)

(২০) কিয়ামতের দিন পয়লা হিসাব নেয়া হবে সালাতের। (তাবরানি)

(২১ ) আল্লাহর অনুগত দাস আর কুফরীর মাঝে মিলন সেতু হলো সালাত ত্যাগ করা। (সহীহ মুসলিম)

(২২ ) যে ব্যক্তি লোক দেখানোর জন্যে সালাত পড়লো, সে শিরক করলো। (আহমদ)

সাওম নিয়ে হযরত মোহাম্মদ সাঃ এর উক্তি

(২৩ ) সাওম একটি ঢাল। (মিশকাত)
শব্দার্থ : সাওম – রোজা।

(২৪)সাওম এবং কুরআন বান্দার জন্যে সুপারিশ করবে। (বায়হাকী)

(২৫) যখন রমযান শুরু হয়, তখন রহমতের দুয়ার খুলে দেয়া হয়। (সহীহ বুখারী)

(২৬) তোমাদের মাঝে বরকতময় রমযান মাস এসেছে। আল্লাহ তোমাদের উপর এ মাসের সিয়াম সাধনা ফরয করে দিয়েছেন। (নাসায়ী) হজ্জ ও উমরা

(২৭) হজ্জ ও উমরা পালনকারীরা আল্লার মেহমান। (মিশকাত)

আল্লাহর পথে জিহাদ

(২৮ ) আল্লাহর পথে একটি সকাল কিংবা একটি সন্ধ্যা ব্যয় করা গোটা পৃথিবী এবং পৃথিবীর সমস্ত সম্পদের চেয়ে উত্তম। (সহীহ বুখারী)

(২৯) যে লড়ে যায় আল্লাহর বাণীকে বিজয়ী করার জন্যে সেই আল্লাহর পথে ( জিহাদ করে )। (সহীহ বুখারী)

(৩০) অত্যাচারী শাসকের সামনে সত্য কথা বলা সবচেয়ে বড় জিহাদ। (তিরমিযী)

জ্ঞানার্জন

(৩১) রাত্রে ঘন্টাখানেক জ্ঞান চর্চা করা সারা রাত জেগে ( ইবাদতে নিরত ) থাকার চেয়ে উত্তম। (দারমী)

(৩২) যে জ্ঞানের সন্ধানে বের হয়, সে আল্লাহর পথে বের হয়। (তিরমিযী)

(৩৩) আমার পরে সবচেয়ে বড় দানশীল সে, যে কোনো বিষয়ে জ্ঞান লাভ করলো, অতপর তা ছড়িয়ে দিলো। (বায়হাকী)

আল কুরআন

(৩৪) সর্বোত্তম বাণী আল্লাহর কিতাব। (সহীহ মুসলিম)

(৩৫) কুরআনকে আঁকড়ে ধরো, তাহলে কখনো বিপথগামী হবেনা। (মিশকাত)

(৩৬) কুরআন পরিবারের লোকেরা আল্লাহর পরিবার এবং তাঁর বিশেষ লোক। (নাসায়ী)

(৩৭) তোমরা আল্লাহর কিতাবকে আঁকড়ে ধরো। এর হালালকে হালাল বলে গ্রহণ করো এবং এর হারামকে হারাম বলে বর্জন করো। (হাকিম)

(৩৮) যে আল্লাহর কিতাবের পথ ধরে সে দুনিয়াতে বিপথগামী হয়না এবং পরকালে হয়না দুর্ভাগা। (মিশকাত)

(৩৯) আমার উম্মতের সম্মানিত লোক হলো কুরআনের বাহক আর রাতের সাথীরা (বায়হাকী)

রসূল ও সুন্নাহ

(৪০) সর্বোত্তম জীবন পদ্ধতি হচ্ছে মুহাম্মদ সাঃ প্রদর্শিত পদ্ধতি। (সহীহ মুসলিম)

( ৪১) যে আমার আনুগত্য করলো সে আল্লাহর আনুগত্য করলো। (সহীহ বুখারী)

(৪২) যে আমাকে অমান্য করলো সে আল্লাহকে অমান্য করলো। (সহীহ বুখারী)

(৪৩) যে আমার সুন্নতকে ভালোবাসলো সে আমাকে ভালোবাসলো। (সহীহ মুসলিম)

(৪৪) যে আমার সুন্নত থেকে বিমুখ হলো, সে আমার লোক নয়। (সহীহ মুসলিম)

(৪৫ ) আমি আল্লাহর কাছে শেষ নবী হিসেবে লিখিত আছি। (শরহে সুন্নাহ)

নিয়্যত

(৪৬) কাজ নির্ভর করে নিয়্যতের উপর।(সহীহ বুখারী)

নোট : নিয়্যত মানে -উদ্দেশ্য,সংকল্প,ইচ্ছা,কোনো নির্দিষ্ট কাজ করার সিদ্ধান্ত নেয়া।‘কাজ নির্ভর করে নিয়্যতের উপর’ মানে কাজের পেছনে মানুষের যে উদ্দেশ্য, সংকল্প বা সিদ্ধান্ত থাকে, তার ভিত্তিতেই সে ফল ও পুরস্কার লাভ করবে।

(৪৭) প্রত্যেক ব্যক্তি তার কাজের সেই ফলই পাবে,যা সে নিয়্যত করেছে।[সহীহ বুখারী)

(৪৮)আল্লাহ তোমাদের চেহারা সুরত ও ধনসম্পদ দেখবেননা,তিনি দেখবেন তোমাদের অন্তর ও কাজ [সহীহ মুসলিম)

নোট :এখানে অন্তর মানে -উদ্দেশ্য ও লক্ষ্য বা নিয়্যত।

এই তিনটি হাদীস থেকে আমরা মানব জীবনে উদ্দেশ্য ও লক্ষ্য বা নিয়্যতের গুরুত্ব জানতে পারলাম।সুতরাং আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের উদ্দেশ্যেই যাবতীয় কাজ করা উচিত।

নৈতিক চরিত্র

(৪৯) মহত চরিত্রের পূর্ণতা দানের জন্যে আমার আগমন। [মুআত্তায়ে মালিক)

শব্দার্থ :‘আখলাকুন’ও‘খুলুকুন’ মানে -নৈতিক চরিত্র,ব্যবহার,আচার আচরণ।

(৫০)উত্তম চরিত্রের চাইতে বড় মর্যাদা আর নেই।[ইবনে হিব্বান)

(৫১)ঈমানের পূর্ণতা লাভকারী মুমিন তারা,যাদের নৈতিক চরিত্র সর্বোত্তম।[মিশকাত)

(৫২)তোমাদের মধ্যে সবচেয়ে ভালো মানুষ তারা,যাদের আচার ব্যবহার সবচেয়ে ভালো।[সহীহ বুখারী)

(৫৩)আল্লাহর নবীর চরিত্র ছিলো ঠিক কুরআনের মতো।[আয়েশা রাঃ সহীহ মুসলিম)

দীন

(৫৪)দীন খুব সহজ [সহীহ বুখারী

ব্যাখ্যা :দীন মানে – জীবন যাপন পদ্ধতি।

এখানো দীন মানে দীন ইসলাম। অর্থাৎ ইসলামের জীবন যাপন পদ্ধতি খুব সহজ।

(৫৫ ) দীন হলো – কল্যাণ কামনা। (সহীহ মুসলিম)

নোট : দীন ইসলামের মূল কথা হলো, নিজের এবং সকল মানুষের দুনিয়াবী ও পরকালীন কল্যাণ চাওয়া।

(৫৬ ) আল্লাহ যার ভালো চান, তাকে দীনের সঠিক জ্ঞান দান করেন। (সহীহ বুখারী)

আল্লাহর ভয়

(৫৭) জ্ঞানের মাথা হলো আল্লাহকে ভয় করা। (মিশকাত)

ব্যাখ্যা : অর্থাৎ যে আল্লাহকে ভয় করে সে – ই সবচেয়ে বড় জ্ঞানী।

(৫৮) আল্লাহকে ভয় করো, তাতেই সবচেয়ে বড় ইবাদতকারী হতে পারবে।(মিশকাত)

(৫৯) একজনের উপর আরেকজনের কোনো মর্যাদা নেই। তবে আছে আল্লাহ ভীতি ভিত্তির। (তিবরানী)

(৬০) সে ব্যক্তি দোযখে প্রবেশ করবেনা, যে আল্লাহর ভয়ে কাঁদে। (তিরমিযী)

শ্রেষ্ঠ আমল

(৬১) শ্রেষ্ঠ আমল হলো, আল্লাহর জন্যে ভালোবাসা এবং আল্লাহর জন্যে ঘৃণা করা। (আবু দাউদ)

বিশ্বস্ততা

(৬২) যার মধ্যে আমানত নেই তার ঈমান নেই। (মিশকাত)

শব্দার্থ : আমানত মানে – বিশ্বস্ততা, বিশ্বাসযোগ্যতা।

(৬৩) যে অংগীকার রক্ষা করেনা, তার ধর্ম নেই। (মিশকাত)

দুনিয়ার জীবন

(৬৪) দুনিয়া মুমিনের জন্যে কারাগার আর কাফিরের বেহেশত। (সহীহ মুসলিম)

(৬৫)দুনিয়াতে এমন ভাবে জীবন যাপন করো যেনো তুমি একজন গরীব কিংবা পথিক। (সহীহ বুখারী)

(৬৬) অনাড়ম্বর জীবন যাপন ঈমানের অংশ। (আবু দাউদ)

মসজিদ

(৬৭) পৃথিবীতে মসজিদগুলোই আল্লাহর সবচাইতে প্রিয় জায়গা। (সহীহ মুসলিম)

(৬৮) আমার জন্যে গোটা পৃথিবীকেই সিজদার জায়গা এবং পবিত্র করে দেয়া হয়েছে। (সহীহ বুখারী)

(৬৯) যে আল্লাহর উদ্দেশ্যে একটি মসজিদ বানায়, আল্লাহ জান্নাতে তার জন্যে একটি ঘর বানায়। (সহীহ বুখারী)

মুয়াজ্জিন

(৭০) কিয়ামতের দিন মুয়াজ্জিনের ঘাড় সবচেয়ে লম্বা উঁচু হবে। (সহীহ মুসলিম)

নিজের জন্যে পরের জন্যে

(৭১) নিজের জন্যে যা পছন্দ করো, অন্যদের জন্যেও তাই পছন্দ করবে, তবেই হতে পারবে মুমিন। (সহীহ মুসলিম)

(৭২) তোমাদের কেউ মুমিন হবেনা, যতোক্ষণ সে নিজের জন্যে যা পছন্দ করে, তার ভাইয়ের জন্যেও তাই পছন্দ না করবে। (সহীহ বুখারী)

আল্লাহই যথেষ্ট

(৭৩ ) যে আল্লাহর উপর ভরসা করে, তার জন্যে আল্লাহই যথেষ্ট। (ইবনে মাজাহ)

জ্ঞানী

(৭৪ ) জ্ঞানীরা নবীদের উত্তরাধিকারী। (তিরমিযী)

(৭৫) জ্ঞানবান আর দুনিয়াদার সমান নয়। (দারেমী)

(৭৬) সবচেয়ে মন্দ লোক জ্ঞানীদের মধ্যে যারা মন্দ তারা, আর সবচেয়ে ভালো লোক জ্ঞানীদের মধ্যে যারা ভালো তারা। (দারমী)

(৭৭) প্রতিটি জ্ঞান তার বাহকের জন্যে বিপদের কার‌ণ, তবে যে সে অনুযায়ী আমল (কাজ) করে তার জন্যে নয়। (তাবরানী)

শিক্ষক

(৭৮ ) আমি প্রেরিত হয়েছি শিক্ষক হিসেবে। (মিশকাত)

(৭৯) শিক্ষাদান করো এবং সহজ করে শিখাও। (আদাবুল মুফরাদ)

সুধারণা কুধারণা

(৮০) সুধারণা করা একটি ইবাদত। (আহমদ)

(৮১) অনুমান ও কুধারণা করা থেকে বিরত থাকো, কেননা অনুমান হলো বড় মিথ্যা কথা। (সহীহ বুখারী)

যুলম

(৮২) যুলম করা থেকে বিরত থাকা। কেননা, কিয়ামতের দিন যুলম অন্ধকারের রূপ নেবে। (সহীহ মুসলিম)

(৮৩) মযলুমের ফরিয়াদ থেকে আত্মরক্ষা করো। (সহীহ বুখারী)

ভ্রাতৃত্ব

(৮৪) মুমিন মুনিনের ভাই। (মিশকাত)

(৮৫) মুসলমান মুসলমানের ভাই। (সহীহ বুখারী)

নোট : এ দুটি হাদীসে ঈমান এবং ইসলামকে ভ্রাতৃত্বের ভিত্তি বলা হয়েছে।

ভ্রাতৃত্বের দায়িত্ব

(৮৬) মুমিন মুমিনের আয়না। (মিশকাত)

শিক্ষা : আয়না যেমন ময়লা দূর করতে এবং সাজ সৌন্দর্য গ্রহণ করতে সাহায্য করে, তেমনি একজন মুমিনের কর্তব্য তার মুমিন ভাইয়ের দোষ ত্রুটি দূর ও সুন্দর গুণাবলী অর্জন করার কাজে সাহায্য করা।

(৮৭) মুসলমান মুসলমানের ভাই। সে তার ভাইয়ের প্রতি যুলম করেনা এবং তাকে অপমানিতও করেনা। (সহীহ মুসলিম)

(৮৮) মুমিন মুমিনের সাথে প্রাচীরের গাঁথুনির মতে মজবুত সম্পর্ক রাখে। (সহীহ বুখারী)

(৮৯ ) মুমিন ছাড়া অন্যকে সাথী বন্ধু বানাবেনা। (মিশকাত)

সুকৃতি দুস্কৃতি

(৯০) যে ভালো কাজের আদেশ করেনা এবং মন্দ কাজ থেকে নিষেধ করেনা, সে আমার লোক নয়। (তিরমিযী) বিনয়

(৯১ ) যে আল্লাহর উদ্দেশ্যে বিনয়ী হয়, আল্লাহ তার মর্যাদা বাড়িয়ে দেন। (মিশকাত)

বিশ্বাস ভংগ করা

(৯২)যে তোমার সাথে বিশ্বাস ভংগ করেছে, তুমি তার সাথে বিশ্বাস ভংগ করোনা। [তিরমিযী)

আনুগত্য ও নেতৃত্ব

(৯৩) যে নেতার আনুগত্য করলো, সে আমারই আনুগত্য করলো। (সহীহ বুখারী)

(৯৪) যে নেতার অবাধ্য হলো সে আমার অবাধ্য হলো। (সহীহ বুখারী)

(৯৫) যে আল্লাহর অবাধ্য হয়, তার আনুগত্য করা যাবেনা। (কানযুল উম্মাল)

(৯৬) কারো এমন হুকুম মানা যাবেনা, যাতে আল্লাহর হুকুম অমান্য করতে হয়। (সহীহ মুসলিম)

(৯৭) যে নেতা হয়, তাকে সবার চেয়ে দীর্ঘ হিসাব চেয়ে দীর্ঘ হিসাব দিতে হবে। (কানযুল উম্মাল)

দান

(৯৮)দান হচ্ছে একটি প্রমাণ। (সহীহ মুসলিম)

(৯৯) যে আল্লাহর পথে একটি দান করে, আল্লাহ তার জন্যে সাতশ ; গুণ লিখে দেন। (তিরমিযী)

(১০০) দান সম্পদ কমায়না। (তিবরানী)

ভালো ব্যবহার

(১০১ ) যে আল্লাহ ও পরকালের প্রতি ঈমান রাখে, সে যেনো উত্তম কথা বলে। (সহীহ বুখারী)

(১০২ ) তোমার ভাইয়ের দিকে হাসি মুখে তাকানো একটি দান।(তিরমিযী)

(১০৩) যে মানুষের কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেনা, সে আল্লাহরও কৃতজ্ঞ হয়না। (আবু দাউদ)

অর্থ ও আল্লাহ ভীতি

(১০৪) যে আল্লাহকে ভয় করে, তার ধনী হওয়াতে দোষ নেই। (মিশকাত)

(১০৫) যে আল্লাহকে ভয় করে, তার জন্যে অর্থের প্রাচুর্যের চেয়ে শারীরিক সুস্থতা উত্তম। (মিশকাত)

সত্য মিথ্যা

(১০৬) সত্য দেয় মনের শান্তি আর মিথ্যা দেয় সংশয়। (তিরমিযী)

প্রফুল্লতা

(১০৭) মনের প্রফুল্লতা আল্লাহর একটি অনুগ্রহ। (মিশকাত)

ক্ষতিগ্রস্থ লোক

(১০৮) যার দুটি দিন সমান গেলো, সে ক্ষতিগ্রস্ত হলো। (দায়লমী)

ব্যাখ্যাঃ হাদীসটির মর্ম হলো, যে ব্যক্তি প্রতিদিন নিজেকে আগের দিনের চেয়ে এক ধাপ উন্নত কতে পারেনা, কিছু‌টা এগিয়ে নিতে পারেনা, সে ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং পিছিয়ে পড়ে।

ভালো মানুষ

(১০৯ )তোমাদের মধ্যে ভালো মানুষ তারা, যাদের দেখলে আল্লাহর কথা স্মরণ হয়। (ইবনে মাজাহ)

খাবার আদব

(১১০) ডান হাতে খাও এবং যা নিকটে তা থেকে খাও। (সহীহ বুখারী)

মেহমানদারি

(১১১) যে আল্লাহ ও পরকালের প্রতি ঈমান রাখে, সে যেনো নিজের মেহমানকে সম্মান -যত্ন করে। (সহীহ বুখারী) ভালো কাজ

(১১২) প্রতিটি ভালো কাজ একটি দান। (সহীহ বুখারী)

(১১৩) উত্তম লোক সে, যার বয়স হয় দীর্ঘ আর কর্ম হয় সুন্দর। (তিরমিযী)

মুসলমানের অধিকার

( ১১৪) মুসলমান সে, যে নিজের অনিষ্টকর ভাষা ও কর্ম থেকে মুসলমানদের নিরাপদ রাখে। (সহীহ বুখারী)

(১১৫) মুসলমানকে গালি দেয়া ফাসেকী আর হত্য করা কুফরী। (সহীহ বুখারী)

(১১৬) প্রত্যেক মুসলমানের জন্যে অপর মুসলমানদের রক্ত, সম্পদ ও ইজ্জত সম্মানযোগ্য। (সহীহ মুসলিম)

ব্যাখ্যা : হাদীসটির অর্থ এভাবেও বলা যায় :

মুসলমানের জন্যে মুসলমানের রক্তপাত করা এবং সম্পদ ও ইজ্জত নষ্ট করা হারাম।

মুহাজির

(১১৭) মুহাজির সে,যে আল্লাহর নিষেধ করা কাজ ত্যাগ করে। (সহীহ বুখারী)

শোকর ও সবর

যে খেয়ে শোক আদায় করে, সে ধৈর্যশীল রোযাদারের সমতূল্য। (তিরমিযী)

(১১৯) সবর হলো আলো। (সহীহ মুসলিম)

ধোকা হিংসা বিদ্বেষ

(১২০) যে কাউকেও প্রতারণা করলো সে আমার লোক নয়। (সহীহ মুসলিম)

(১২১ ) সাবধান! তোমরা হিংসা করা থেকে আত্মরক্ষা করো। (আবু দাউদ)

(১২২) তোমরা একে অপরের প্রতি হিংসা করোনা, ঘৃণা বিদ্বেষ কারো না এবং পরস্পর থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়োনা। (সহীহ মুসলিম) শিশু

(১২৩) শিশুরা আল্লাহর ফুল।(তিরমিযী)

পরিজনের কাছে উত্তম

(১২৪) তোমাদের মাঝে উত্তম লোক সে, যে তার পরিবার পরিজনের কাছে উত্তম। (ইবনে মাজাহ)

জনসেবা

(১২৫)রোগীর সেবা করো এবং ক্ষুধার্তকে খেতে দাও। (সহীহ বুখারী)

(১২৬ আল্লাহ সকল কিছুর প্রতি দয়া ও সহানুভূতি দেখাবার নির্দেশ দিয়েছেন। (সহীহ মুসলিম)

(১২৭)আল্লাহ ততোক্ষণ বান্দাহর সাহায্য করেন, যতোক্ষণ সে তার ভাইয়ের সাহায্য করে। (সহীহ মুসলিম)

(১২৮) যে তার ভাইয়ের প্রয়োজন পূরণ করে, আল্লাহ তার প্রয়োজন পূরণ করেন। (সহীহ বুখারী)

(১২৯) তোমার ভাইয়ের বিপদে আনন্দ প্রকাশ করোনা। (তিরমিযী)

ব্যক্তিত্ব গঠন

(১৩০) মুসলমান ব্যক্তির ইসলামনের সৌন্দর্যগুলোর একটি হলো, নিরর্থক কথা ও কাজ ত্যাগ করা। (তিরমিযী)

(১৩১ ) লজ্জা ঈমানের অংশ। (মিশকাত)

(১৩২ )যখন সাহায্য চাইবে, আল্লাহর কাছে চেয়ো। (মিশকাত)

আল্লাহকে স্মরণ করা

(১৩৩) যে তার প্রভুকে স্মরণ করে, আর যে করেনা, তাদের উদাহরণ হলো জীবিত ও মৃতের মতো। (সহীহ মুসলিম)

সত্য কথা

(১৩৪) সত্য কথা বলো, যদিও তা তিক্ত। (ইবনে হিব্বান)

কর্মকৌশল

(১৩৫) প্রচেষ্টার চেয়ে বড় কোনো যুক্তি নাই। (ইবনে হিব্বান)

সন্তুষ্টি নিয়ে উক্তি

সন্তুষ্টি নিয়ে উক্তি বাণী ও স্ট্যাটাস দেয়া হলো । আশাকরি অনেক ভালো লাগবে । আমরা অনেক রকম উক্তি বা বাণী দেখি । কিন্তু সন্তুষ্টি নিয়ে তেমন কোন বাণী বা উক্তি দেখতে পাই না । তাই এখানে কিছু সুন্দর সুন্দর ও জনপ্রিয় স্ট্যাটাস দেয়া হলো । পড়ে অনেক কিছু শেখা যাবে আশা করি । তো চলুন দেখি কি কি উক্তি এখানে দেয়া আছে । আরো পড়ুনঃ বাস্তবতা নিয়ে কিছু উক্তি

সন্তুষ্টি নিয়ে উক্তি

যে অল্পতে সন্তুষ্ট নয়, সে কোন কিছুইতেই সন্তুষ্ট নয় ।
— Epicurus

সন্তুষ্ট হওয়ার দুটি উপায় রয়েছে। একটি হলো বেশি করে ধৈর্য ধরে থাকা। অন্যটি হলো কম ইচ্ছা পোষণ করা ।
— G.K. চেস্টারটন

আত্মতুষ্টি দরিদ্র লোকদের ধনী করে তোলে; অসন্তোষ ধনী লোকদের দরিদ্র করে তোলে।
— বেঞ্জামিন ফ্রাঙ্কলিনসন্তুষ্টি নিয়ে উক্তি

সন্তুষ্টি হলো এমন মূলধন যা কখনই কমবে না ।
— আলী ইবনে আবু তালিব (রাঃ)

সন্তুষ্টি দুঃখ থেকে মুক্তি দেয়, যা জীবনের একটি ইতিবাচক উপাদান ।
— আর্থার শোপেনহয়ের

শুধুমাত্র পাগল এবং বোকারাই নিজের প্রতি সন্তুষ্ট থাকে; কোন জ্ঞানী মানুষ তার নিজের সন্তুষ্টির পক্ষে যথেষ্ট ভাল না ।
— বেঞ্জামিন হুইকোট

আপনার কাজে সন্তুষ্ট থাকুন এবং আপনি যে ভাবে চলছেন তা পছন্দ করতে শিখুন ।
— মার্কাস অরেলিয়াস

সুখে থাকার জন্য সরলতা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ । কিছু ইচ্ছা থাকা, আপনার যা আছে তা নিয়ে সন্তুষ্ট বোধ করা অত্যন্ত জরুরী ।
— দালাই লামা

আমরা যখন কোন কিছু পাই তখন আমরা সন্তুষ্ট হই না, তখন বলি এটি আমার দরকার ছিল না।
— সিএস লুইস

অনেক কিছু হয়তো অনেক বেশি, কিন্তু যথেষ্ট নয় ।
— অজানা

একজন মানুষকে কখনই পরিপূর্ণ সন্তুষ্ট করা সম্ভব নয় ।
— অজানা

অল্পতে সন্তুষ্ট ব্যাক্তিরা তাদের অনুভূতিতে , ভালো অবস্থায়, খারাফ অবস্থায় ও অল্পতেই সন্তুষ্টি খুঁজে পায় ।
— অনার ডি বালজ্যাক

কৌতূহলের সন্তুষ্টি জীবনে সুখের অন্যতম উৎস ।
— লিনাস পলিং

আপনি কাউকে ভুল প্রমান করতে পারলে সেখানে আপনার ব্যক্তিগত কিছু সন্তুষ্টি থাকে ।
— ড্রু ব্রি

যে কাজ করে তুমি সন্তুষ্ট নয়, সে কাজে তোমার সফলতা আসবে না ।
— অজানা

যদি চাও কেউ তোমার উপর সন্তুষ্ট থাকুক, তাহলে তার মত করে নিজেকে পরিচালিত করো ।
— অজানা