বেইমান মানুষ নিয়ে উক্তি

বেইমান মানুষ নিয়ে উক্তি গুলো পড়ে দেখুন, অনেক ভালো লাগবে । বন্ধু বেঈমানি করা এখন আমাদের সমাজে খুব কমন একটা ব্যাপার হয়ে গেছে । এটাকে এখন তেমন কেউই কোন অপরাধ মনে করে না । কথা দিতে কথা না রাখাকেই আমরা মূলত বেঈমানি করা বুঝাই । যাহোক এটা নিয়ে আমাদের আজকের লেখা । চলুন লেখা গুলো পরে আসি ।

বেইমান মানুষ নিয়ে উক্তি :

১. মানুষ বড়ই স্বার্থপর আর বেইমান। এই স্বার্থের দুনিয়ায় আমার চাওয়ার কিছুই নেই।

২. যদি বেইমানী ই করতে, তবে ভালোবেসেছিলে কেন?

৩. দূর্ভাগ্য তো আমারই! তোমার মতো একজন বেইমানের সাথে আমায় এতদিন চলতে হয়েছে।

৪. বেইমানদের ঠাঁই নরকেও হবে না। তাদের ছোঁয়ায় নরক ও অপবিত্র হয়ে যাবে।বেইমান মানুষ নিয়ে উক্তি

৫. বেইমানরা তো ইহজগতের কীট। তাদের ঝেঁটিয়ে বিদেয় করা উচিত।

৬. কিছু কিছু মানুষ বেইমানি করে প্রচণ্ড আনন্দ পায়। কেননা, তারা যে বিকৃত মানসিকতার মানুষ।

৭. বেইমানির চেয়ে চরম অধর্মের আর কিছু হতেই পারে না।

৮. বেইমানির প্রতিশোধ তো একমাত্র বেইমানি দিয়েই হয়।

৯. বেইমানদের মন বড়ই সংকীর্ণ। তারা কেবল অন্যের ক্ষতি করার জন্য উন্মুখ হয়ে অধীর আগ্রহে বসে থাকে।

১০. সততার পুরষ্কার স্বর্গ, আর বেইমানির পুরষ্কার হলো নরক।

১১. খনিকের সুখ চাও? তবে বেইমানি করো। কিন্তু মনে রেখো, এইটা পরিশেষে তোমায় ভোগাবে।

১২. কাউকে কষ্ট দিতে চাও? তো তার সাথে বেইমানি করো।

১৩. বেইমানির ছলনায় পরে যেও না, নয়তো একদিন খুব কাঁদবে।

১৪. বেইমান? সে তো কেবল একমাত্র মানুষই হতে পারে।

১৫. বেইমানদের তো গঙ্গা জলে স্নান করালেও কখনো আত্মশুদ্ধি হবে না তাদের।

১৬. বেইমান তো সবাই ই। কিন্তু সেটা প্রকাশিত হয় স্থান, কাল, পাত্র ভেদে।

১৭. বেইমান কে দেখতে চাও? নিজের দিকে তাকাও। কি ভাবছো, তুমি তো কখনো বেইমানি করো নি? চিন্তা করো না। তুমিও ঠিকই একদিন না একদিন কারোর সাথে বেইমানি করবে।

১৮. বেইমানদের চেনা বড়ই দায় এই মুখোশের দুনিয়ায়।

১৯. বেইমানদের ভুলে যাও। তাদের মনে রেখে নিজের ভেতর কষ্ট বাড়ানোর তো কোনো মানে হয় না।

২০. মানুষের এক অন্যতম কু-বৈশিষ্ট্য : বেইমানি করা।

২১. বেইমানদের দ্বিতীয়বার সুযোগ দিতে নেই। কারণ, তারা এত সহজে তাদের পূর্বের স্বভাব বদলাতে পারে না।

২২. যেখানেই যাও। সেখানে অন্তত ১/২ জন বেইমান থাকবেই। কেননা, বেইমানদের অস্তিত্ত্ব না থাকলে যে দুনিয়া থেকে কবেই সততার কদর উঠে যেত!

২৩. শোন, তুমি কুকুরের লেজ সোজা করতে পারবে; কিন্তু কখনো বেইমানদের মান ফেরাতে পারবে না। তাদের কে শোধরানো তো সময় নষ্ট ছাড়া আর কিছুই নয়।

২৪. বেইমানরা তো ছায়ার মতো বিরাজ করে। তাদের ঠাহর করে ওঠা ভীষণ দুরূহ ব্যাপার।

২৫. একজন বেইমান কে বন্ধু বানানো আর দুধ দিয়ে কাল সাপ পোষা একই কথা।

২৬. বেইমানরা তো খাল কেটে ডেকে আনা কুমিরের মতন।

২৭. বেইমানদের যত লাই দিবে, তত তুমি চোরাবালির মধ্যে ডুবতে থাকবে।

২৮. জীবনের কোনো স্বাদ খুঁজে পাচ্ছ না? একজন বেইমান কে বন্ধু বানাও। সে তোমার জীবনে নতুন মাত্রার স্বাদ এনে দেবে- দুঃখের স্বাদ।

২৯. বেইমানদের ক্ষমা হয় না। সে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে কাঁদলেও তাকে মাফ করে দিতে নেই।

৩০. বেইমান আছে বলেই তো পৃথিবীতে সৎদের কদর জারি আছে।

৩১. বেইমান তো বেইমানি করবেই! এতে অবাক হওয়ার কিছু নেই। এটাই তার ধর্ম।

৩২. বেইমানদের দেরিতে হলেও মানুষ চিনবেই।

৩৩. কারো সাথে বেইমানি করলে তোমার হয়তোবা ক্ষণিকের জন্য লাভ হবে। কিন্তু এতে তোমার ভেতরের প্রশান্তি টা চিরজীবনের জন্য নষ্ট হয়ে যাবে।

৩৪. বেইমানরা কখনো কারো প্রিয় পাত্র হতে পারে। তারা ভালোবাসা পাবার যোগ্যই নয়।

৩৫. বেইমানি যে করে আর বেইমানি যে মুখ বুজে সহে – দু’জনেই সমান অপরাধী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x