দোয়া মাসুরা

দোয়া মাসুরা নামাজের শেষে পড়তে হয় । এটি পড়ে নামাজের সালাম ফেরানো হয় । নিচের এর আরবি , উচ্চারন ও বাংলা অর্থ বা অনুবাদ দেয়া হলো । আশাকরি আপনাদের কাজে আসবে । যদি সামান্য উপকার হয় তাহলে শেয়ার করবেন । ধন্যবাদ । Read more >> দোয়া কুনুত

দোয়া মাসুরা

আরবিঃ اللّٰهُمَّ إِنِّيْ ظَلَمْتُ نَفْسِيْ ظُلْمْاً كَثِيْراً، وَلاَ يَغْفِرُ الذُّنُوْبَ إِلاَّ أَنْتَ، فَاغْفِرْ لِيْ مَغْفِرَةً مِنْ عِنْدِكَ وَارْحَمْنِي، إِنَّكَ أَنْتَ الغَفُوْرُ الرَّحِيْمُ

উচ্চারণঃ আল্লাহুম্মা ইন্নি যলামতু নাফসি যুলমান কাসিরা । ওয়ালা ইয়াগ ফিরুয যুনুবা ইল্লা আনতা ফাগফির লি । মাগফিরাতাম মিন ইনদিকা । ওয়ার হামনি । ইন্নাকা আনতাল গাফুরুর রাহিম ।

বাংলা অর্থ / অনুবাদঃ হে আল্লাহ ! আমি আমার নিজ আত্মার উপর বড়ই অত্যাচার করেছি, গুনাহ মাফকারী একমাত্র আপনিই । অতএব আপনি আপনা হতেই আমাকে সম্পূর্ণ ক্ষমা করুন এবং আমার প্রতি দয়া করুন । নিশ্চয়ই আপনি ক্ষমাশীল দয়ালু ।

দোয়া মাসুরা

দোয়া পড়ার নিয়মঃ

এই দোয়া টি আমরা সাধারণত নামাযের শেষের দিকে বৈঠকে বসে আত্তাহিয়াতু পড়ার পর, দুরুদে ইব্রাহিম পড়ার পর এই দোয়া টি পড়ে থাকি । নামাযে নিয়ত বাঁধার পর সানা (সুবাহাকাল্লাহুম্মা) পড়তে হয় । এর পর সূরা ফাতিহা পড়তে হয় । তারপর সূরা ফাতিহার সাথে অন্য যেকোন সূরা মিলিয়ে পড়তে হয় । এরপর রুকুতে গিয়ে সুবহা-না রব্বিয়াল আ`যিম পড়তে হয় । এরপর রুকু থেকে উঠে সোজা হয়ে দাড়াতে হয় । রুকু থেকে উঠে যদি ইমাম হয় তাহরে পড়তে হয়, ছামিআল্লাহ হুলিমান হামিদাহ, আর মুত্তাকি হলে পড়তে হয় রাব্বানা লাকাল হামদ”। তারপর সিজদায় যেতে হয়, সেজদায় সুবহা-না রব্বিয়াল আ‘লা পড়তে হয় । এভাবে দুই সেজদার পড় উঠে দাঁড়িয়ে হাত বাঁধতে হয় ।

Read More  A Village Doctor Paragraph

তারপর আবার আগের নিয়মে সূরা ফাতিহা পড়ে, আগের মত করে পরের রাকাত শেষ করতে হয় । এভাবে যদি দুই রাকাত নামাজ হয়, তাহলে দুই রাকাত পড়ার পরে বসে আত্তাহিয়াতু পড়তে হয় । তারপর দুরুদে ইব্রাহিম পড়তে হয় । তারপর সালাম ফেরানোর আগে এই দোয়া মাসুরা পড়তে হয় ।

আমরা এখানে দোয়া মাসুরা টি দিয়েছি আপনাদের উপকারের জন্য । এখানে যদি কোন কিছু ভুল থেকে থাকে, তাহলে নিচে কমেন্ট করে আমাদের জানাতে পারেন । আমরা যত দ্রুত সম্ভব, তা ঠিক করে আপডেট করে দেবো । অনেকেই দোয়া মাসুরা শুদ্ধ ভাবে পড়ার জন্য অনলাইনে খোঁজ করে থাকে, মূলত তাদের জন্যই এটা দেয়া । নিজে পড়ুন এবং অন্যকেও পড়ার জন্য বলুন । ধন্যবাদ ।

11 Comments

  1. ১।রুকু থেকে উঠে “রাব্বানা লাকাল হামদ ” বলার পর ” হামদান কাসিরান তায়্যিবান মুবারাকান ফীহ্”
    ২। দুই মিজদার মাঝে বসে” আল্লাহুম্মাগফিরলী, ওয়ারহামনী, ওয়াহদিনী, ওয়া আফিনী, ওয়ারযুকনী”
    ৩। শেষ রাকাতে দোয়াযে মাসুরা পড়ার পর” আল্রাহুম্মা ইন্নি আউযুবিকা মিন আযাবি জাহান্নাম, ওয়া আউযুবিকা মিনাল আযাবিল কবর, ওয়া আউযুবিকা মিন ফিতনাতিল মাসিহি্দাজ্জাল, ওয়া আউযুবিকা মিন ফিতনাতিল মাহইয়া ওয়াল মামাত”৷ এই দোয়াগুলি পড়া উচিত।

  2. Jahid Hasan, ধন্যবাদ আপনার গুরুত্বপূর্ণ মতামতের জন্য । আমরা বাদ যাওয়া কথাটি যোগ করে দিয়েছি ।

  3. রুকু থেকে উঠে যদি ইমাম হয় তাহরে পড়তে হয়, ছামিআল্লাহ হুলিমান হামিদাহ, আর মুত্তাকি হলে পড়তে হয় রাব্বানা লাকাল হামদ” এই টুকু বাদ পড়ছে।

  4. যোহরের চার রাকাত নামাজে প্রথম দুই রাকাত নামাজ পড়ার পর আত্তাহিয়াতু সম্পুর্ন পড়তে হয় কি? প্লিজ জানাবেন

  5. নামাজে দুরুদে ইব্রাহিম ও দোয়া মাসুরা দুইটাই পড়তে হবে । তবে কেউ কেউ দোয়া মাসুরা পড়ে না ।

  6. হদুদে ইব্রাহিম না পড়ে দোয়া মাসুরা পড়া যাবে কি?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *